অটিজম সচেতনতা দিবস: করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অটিজম শিশুদের বিশেষ যত্ন ও সেবা

  • পোস্ট করা হয়েছে এপ্রিল ২রা, ২০২০

 অটিজম সচেতনতা দিবস:

বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস। বাংলাদেশে এবারের অটিজম সচেতনতা দিবসের এবারের প্রতিপাদ্যসমবেত মমতা গড়ি, অন্তর্ভুক্তির শপথ করি । অটিজম স্পেকট্রাম ডিজঅর্ডার (এএসডি) বা অটিজম বৈশিষ্ট্যপূর্ণ  শিশুদের লক্ষণ উপসর্গের মাত্রা ভিন্ন ভিন্ন । একজনের সঙ্গে অপরজনের হুবহু মিল নেই। কেউ সবাক, কেউ বা বাক্শক্তি থাকা সত্ত্বেও কথা বলে না। কারও আচরণ অতি চঞ্চল, কেউ অতিরিক্ত  গুটিয়ে থাকা স্বভাবের।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিশ্ব যখন বিপর্যস্ত তখন অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন শিশুরা আরও বেশি নাজুক। তাই তাদের বিশেষ যত্ন সেবার প্রয়োজন।

  • বর্তমান করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি সম্পর্কে ধারণা দেওয়া ।
  •  করোনা ভাইরাসের স্বাস্থ্যবিধি গুলো শেখানোর চেষ্টা করা ।
  •  নিয়মের মধ্যে রাখা  রুটিন করে দেওয়া সে মোতাবেক কাজ করতে সাহায্য করা।  
  • বাসায় টুকিটাকি কাজে সম্পৃক্ত করা ।
  • অল্প সময়ের জন্য শিক্ষামূলক ভিডিও দেখনো ।
  • সামাজিক গল্পের সাহায্যে শেখানোর চেষ্টা করা ।
  • সবাই মিলে  এক সঙ্গে যথষ্ট সময় কাটানো ।
  • শিশুদের সামনে তাদের সম্পর্কে নেতিবাচক কথা না বলা ।
  • সামাজিক দক্ষতা বৃদ্ধির সহায়ক কাজ করানো ।
  • শিশুদের সঙ্গে নির্দিষ্ট স্পস্ট উচ্চারণে কথা বলা ।
  • সহজ ছোট শব্দ ব্যবহার করে কথা বলা  ।
  • ফিজিওথেরাপিষ্টের পরামর্শ নিয়ে রেগুলার  এক্সারসাইজ করানো     
  • যত টা সম্ভব নিজের কাজ নিজে করতে উৎসাহিত করা  ।
  • অকুপেশনাল স্পিচ থেরাপিস্টের পরামর্শ  নেওয়া ।
  • ভালো কাজের জন্য উৎসাহিত করা প্রয়োজনে বিভিন্ন পুরস্কৃত দেওয়া  ।

অবশ্যই স্মরন রাখবেন প্রতিটা শিশু আলাদা এবং তাদের পছন্দ-অপছন্দও আলাদা রকমের হয়ে থাকে। তাদের  পছন্দ অপছন্দের গুরুত্ব দিন  এতে তার মানসিক বিকাশ বৃদ্ধি পাবে ।

লেখক
ছাত্র

Ask Doctor Information

আপনি আরও দেখতে পারেন
ডাক্তার